মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

আর্কাইভ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়

সদর, কক্সবাজার

www.sadar.coxsbazar.gov.bd

 

উপজেলা আইনশৃংখলা কমিটির সভার কার্যবিবরণীঃ

 

সভাপতিঃ

 

শহিদুল ইসলাম

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সদর, কক্সবাজার।

সভার তারিখ ও সময়ঃ

 

০৭/০৫/২০১৪ খ্রিঃ, সময়ঃ সকাল- ১১:০০ টা

সভার স্থানঃ

 

উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষ, সদর, কক্সবাজার।

সভার উপস্থিতিঃ

 

পরিশিষ্ট ‘ক’-তে সন্নিবেশিত।

 

 

সভাপতি উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভার কাজ শুরম্ন করেন। বিগত আলোচনার উপর কোন সংশোধন না থাকায় তা সর্ব সম্মতিক্রমে দৃঢ়ীকরণ করা হয়। অতঃপর সভায় বিসত্মারিত আলোচনামেত্ম নিম্নোক্ত সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

 

ক্রমিক

আলোচনা

সিদ্ধামত্ম

বাসত্মবায়নকারী কর্তৃপক্ষ

০১.

অপরাধ পরিস্থিতি পর্যালোচনাঃ

(ক) এপ্রিল-১৪ মাসে সংঘঠিত অপরাধচিত্র সভায় উপস্থাপন করা হয়। আলোচ্য এপ্রির্ল/১৪ মাসে ১০৮ টি অপরাধ সংঘঠিত হয়।

(খ) অপরাধ চিত্র পর্যালোচনায় দেখা যায়, এপ্রিল-১৪ মাসে, ডাকাতি-০২, চোরাচালান-০১, মাদক-১৯, অপরহরণ-০১, অস্ত্র-০৮ ও অন্যান্য- ৭৫ টিসহ মোট-১০৮টি অপরাধ সংগঠিত হয়। অপরাধ চিত্র পর্যালোচনায় পূর্ববর্তী মাসের তুলনায় আলোচ্য এপ্রিল/১৪ মাসে অপরাধ বৃদ্ধি পেয়েছে মর্মে প্রতীয়মান হয়।

 

সদর উপজেলার অপরাধ দমনে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীকে আরো অধিক তৎপর হওয়ার জন্য এবং  সকল ইউপি চেয়ারম্যান কতৃৃর্ক আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীকে যথারীতি সহায়তা প্রদানের সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, কক্সবাজার মডেল থানা এবং সকল সদস্য, উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটি।

০২.

ইউনিয়ন আইন শৃংখলা কমিটির সভা অনুষ্ঠান সম্পর্কিতঃ

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ের আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা এবং সিদ্ধামত্ম থাকা সত্বেও ইউনিয়ন পরিষদ হতে সভার কার্যবিবরণী পাওয়া যায় না। অনুষ্ঠিত মাসিক সভার কার্যবিবরণী সংশিস্নষ্ট দপ্তরে নিয়মিত প্রেরণের অনুরোধ জানানো হয়।

 

ইউনিয়ন পর্যায়ে আইন শৃংখলা কমিটির সভা প্রতিমাসে অনুষ্ঠান পূর্বক সভার কার্যবিবরনীসহ মাসিক প্রতিবেদন সংশিস্নষ্ট দপ্তরে প্রেরণের সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

ইউপি চেয়ারম্যানগণ (সকল)

০৩.

জঙ্গীবাদ/ সন্ত্রাসবাদের কুফল/ বিদ্যুত সাশ্রয় সংক্রামত্মঃ

 

ই্উপি চেয়ারম্যানগণ বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে মাসিক আইন শৃংখলা কমিটির সভায় জঙ্গীবাদ/সন্ত্রাসবাদের কুফল এবং বিদ্যুৎ সাশ্রয় সম্পর্কিত আলোচনা করা হয়। ইউনিয়ন/ওয়ার্ড পর্যায়ে আইন-শৃংখলা বিষয়ক কমিটির সভায় জঙ্গীবাদ/সন্ত্রাসবাদের কুফল সম্পর্কে বিশদভাবে অলোচনা হয় মর্মে ইউপি চেয়ারম্যানগণ জানান। এলাকায় জঙ্গীবাদ/ সন্ত্রাসীদের মদদদাতা ও পৃষ্টপোষতা সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া গেলে তাৎক্ষনিকভাবে সংশিস্নষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনুরোধ জানান।  

 

 

জঙ্গীবাদ/ সন্ত্রাস এর কুফল/ বিদ্যুৎ সাশ্রয় সম্পর্কে ইউনিয়ন আইন শৃংখলা কমিটিসহ বিভিন্ন সভায় জঙ্গীবাদ/ সন্ত্রাস এর আশঙ্কা দেখা দিলে তাৎক্ষনিকভাবে সংশিস্নষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার এবং বিদ্যুত সাশ্রয়ে জনগণকে সচেতনতা সৃষ্টির সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

ইউপি চেয়ারম্যানগণ (সকল)

                          ০৪.

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ সংক্রামত্মঃ

 

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর হতে প্রাপ্ত প্রতিবেদন মতে আলোচ্য এপ্রিল’১৪ মাসে ৩৫টি অভিযান পরিচালনা করা হয়। এপ্রির্ল মাসে চোলাই মদ-৩৫ লিঃ, এবং ৪১৪টি ইয়াবা জব্দ করা হয়।  এপ্রিল’১৪ মাসে-১০টি মামলা দায়ের করা হয়। দায়েরকৃত মামলায় ১১ জন আসামী গ্রেফতার করা হয়।  এর মধ্যে ০৯টি মামলা ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এবং ০১টি মামলা নিয়মিত এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

 

মাদক উৎপাদনকারী ও বিক্রেতাদের বিরম্নদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করার এবং উক্ত সময় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানগণ মাকদদ্রব্য নিয়ন্ত্রনকারী সংস্থা ও পুলিশকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদানের সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

সহকারী পরিচালক

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

এবং

সকল ইউপি চেয়ারম্যান।

০৫.

নারী ও শিশু নির্যাতন, বাল্য বিবাহ ও যৌতুক সংক্রামত্মঃ

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভায় জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন, বাল্য বিবাহ ও যৌতুক প্রথা রোধকল্পে অধিকতর জনসচেতনতা সৃষ্টি করা প্রয়োজন। আলোচ্য মাসে বাল্য বিবাহের কোন সংবাদ পাওয়া যায়নি মর্মে উপজেলা মহিলা বিষয়ক প্রতিনিধি জানান। নারী ও শিশু নির্যাতন, বাল্য বিবাহ ও যৌতুক প্রথা রোধকল্পে প্রত্যমত্ম গ্রামাঞ্চলের জনগণকে অধিকতর সচেতন করার লক্ষ্যে ইউনিয়ন পর্যায়ে বিভিন্ন সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় সভা-সমাবেশ/অনুষ্ঠানে এর কুফল সম্পর্কে আলোচনা করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউপি চেয়ারম্যানদের প্রতি অনুরোধ জানান। 

 

সকল ইউপি চেয়ারম্যান এবং নিকাহ রেজিষ্টারগণ নারী ও শিশু নির্যাতন, বাল্য বিবাহ ও যৌতুক প্রথা রোধকল্পে প্রত্যমত্ম গ্রামাঞ্চলের জনগণকে অধিকতর সচেতন করার লক্ষ্যে ইউনিয়ন পর্যায়ে বিভিন্ন সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় সভা-সমাবেশ/ অনুষ্ঠানে এর কুফল সম্পর্কে আলোচনা করার সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

ইউপি চেয়ারম্যানগণ (সকল)

এবং

নিকাহ রেজিষ্টারগণ

০৬.

ঈদগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান বিগত সভার সিদ্ধামত্ম মোতাবেক ঈদগাঁও বাজার স্থিত কিছু অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ এবং যত্রতত্র মাংস বিক্রির দোকান বন্ধ করে দেয়ায় উপজেলা প্রশাসন সহ সংশিস্নষ্টদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন উপজেলা প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসনের তৎপরতার কারণে র্ণিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ হয়েছে। বাজারের আরো কিছু অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হলে ঈদগাঁও বাজারে আগত লোকজন অবাধ চলাচল করতে পারবে। তিনি বলেন, ঈদগাঁও ইউনিয়ন ৭নং ওয়াডস্থ মাংস ব্যবসায়ী এজাহার ফকিরের ছেলে ইয়াছিন রীতিমত মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। সময়মত তার বাড়ীতে অভিযান পরিচালনা করা হলে বিপুল মাদক উদ্ধার করা হবে। অনুমতি ব্যতিত যততত্র ভাবে বৈশাখী মেলা তথা বলি খেলার নামে জুয়া খেলা অনুষ্ঠিত হতে না পারে সেজন্য পুলিশ বিভাগকে সজাগ থাকার অনুরোধ জানান।

 

ঝিলংজা ইউপি চেয়ারম্যান বলেন- ঝিলংজা ইউনিয়নের নতুন মেডিকেল এলাকায় বিগত মাসে ২টি খুন সংঘঠিত হয়। থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা তদমত্মাধীন আছে। তিনি বলেন বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা বিরোধী অভিযান পরিচালিত হওয়ায় ইয়াবা ব্যবসায়িরা সদর উপজেলায় আগমন করে তাদের আত্বীয়-স্বজনদের বাসায় আশ্রয় নিচ্ছে। তাদের প্রতিরোধ করা দরকার।

 

ইসলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, চৌফলদন্ডী খালে ছোট ছোট নৌকা চালিয়ে মাঝিরা তাদের জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। নৌকা চালিয়ে মাঝিরা যে টাকা রোজগার করে, ডাকাতদল সেই টাকা রীতিমত ছিনিয়ে নেয়। টাকার জন্য ডাকাতদল খুনও করতে পারে। চৌফলদন্ডী খালে মাঝিরা যাতে নির্ভিঘ্নে নৌকা চালাতে সক্ষম হয়, সেজন্য নদী পাড়ে পুলিশী টহল মোতায়েনের অনুরোধ জানান। তিনি পোকখালী-চৌফলদন্ডী-ইসলামপুর রোডে স্থিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্যও অনুরোধ করেন।

 

জালালাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, এযাবৎ কোন সময় জালালাবাদ এলাকায় আইন শৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি হয়নি। তিনি বলেন, জালালাবাদ এলাকায় বর্তমানে বৈশাখী মেলা তথা বলী খেলা নামে অহরহ জুয়া খেলা চলছে। বলী খেলার আয়োজকরা মসজিদে আযান দেয়ার সময়ও মাইক বাজাতে থাকে। মসজিদে আসা মুসলিস্নগন যে কোন সময় বলী খেলায় আক্রমণ করতে পারে। জালালাবাদ এলাকায় আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে বলি খেলার নামে জুঁয়া খেলা বন্ধের অনুরোধ জানান।

 

 

ভারম্নয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, ভারম্নয়াখালী এলাকার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি ভাল। তবে রামু উপজেলার ভারম্নয়াভালী সীমামত্ম এলাকায় মদ, জুয়া এবং রীতিমত মাদক বিক্রি চলছে। এই সব অবৈধ ব্যবসা বন্ধের জন্য রীতিমত পুলিশী অভিযান পরিচালনার অনুরোধ জানান।

 

খুরম্নশকুল ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, খুরম্নশকুল এলাকায় আইন শৃংখলা পরিস্থিতি ভাল। তিনি বলেন খুরম্নশকুল উচ্চ বিদ্যালয় একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষাা প্রতিষ্ঠানের ভাবমুর্তি নষ্ট করার জন্য বিদ্যালয়ের একজন কম্পিউটার শিক্ষক তার ইচ্ছেমত অন্যান্য শিক্ষক এবং অভিভাবকদের দুর্ব্যবহার করে আসছেন। বিদ্যালয়ে আধিপত্য বিসত্মারের জন্য তিনি এই রকম ঐদ্ধতাপূর্ণ ব্যবহার করে আসছে বলেন জানান। বিদ্যালয়ে সুষ্ঠু ও শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে উক্ত শিক্ষকের ঐদ্ধতাপূর্ণ আচরণের বিষয়ে তদমত্মপূর্বক প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহনের অনুরোধ জানান।

 

ঈদগাঁও সহ যে সকল স্থানে মাদক বিক্রি হয় ঐ সকল এলাকা চিহ্নিত করে অভিযান পরিচালনা করার সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

ঈদগাঁহসহ অন্যান্য বাজার এবং বিভিন্নস্থানের অবৈধ স্থাপনা দখল উচ্ছেদ করা হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

চৌফলদন্ডী খালে ডাকাতীরোধকল্পে পুলিশ টহল দেয়ার সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়।

 

 

 

 

 

 

 

বিনা অনুমতিতে কোথাও বৈশাখী মেলা বা বলি খেলা অনুষ্ঠানের সাথে সাথে আইন শৃংখলা বাহিনীকে সংবাদ দেয়ার সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়। মেলার নামে যাতে কোন জুয়া সহ যে অসামাজিক কাজ বন্ধ করতে হবে।

 

 

 

 

 

ভারম্নয়াখালীতে পুলিশী টহল অব্যাহত রাখতে হবে। ভারম্নয়াখালী ইউনিয়নের বিশেষ আইন শৃংখলা সভা আয়োজনের উদ্যোগ নেয়ার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করা হয়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সহকারী পরিচালক মাদক।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার,

সহকারী কমিশনার (ভুমি) এবং ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সদর মডেল থানা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সদর মডেল থানা।

 

 

 

 

 

 

 

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সদর মডেল থানা।

ইউপি চেয়ারম্যান, (সকল)

 

 

 

 

 

 

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সদর মডেল থানা।

চেয়ারম্যান, ভারম্নয়াখালী ইউপি

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

       

 

 

কমিটির সদস্য ও খুরম্নশকুল বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন, খুরম্নশকুল উচ্চ বিদ্যালয় বর্তমানে এডহক কমিটি দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। বিদ্যালয়ের সাবেক পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাহেব তদবীরে তার ছেলে জনাব আলী হোসেন বিদ্যালয়ে কম্পিউটার শিক্ষক পদে নিয়োগ পান। বিদ্যালয়ে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে তিনি অন্যান্য শিক্ষকের সাথে দুর্ব্যবহার করে আসছেন। কম্পিউটার শিক্ষকের এরকম আচরণের ফলে বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকগণ পাঠদানে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। বিদ্যালয়ের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে কম্পিউটার শিক্ষক জনাব আলী হোসেন এর বিরম্নদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানান।

 

কমিটির সদস্য জনাব জহিরম্নল ইসলাম বলেন, প্রশাসন, জন প্রতিনিধি এবং গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতায় সদর উপজেলার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তিনি বলেন, সরকার ইয়াবা ব্যবসায়ীদের বিরম্নদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। সদর উপজেলার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অধিকতর ভালো রাখার জন্য ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনার জন্য পুলিশ বাহিনীকে আরো তৎপর হওয়ার অনুরোধ জানান।

 

উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও কমিটির সদস্য জনাব মনিরম্নল আলম চৌধুরী বলেন, কমিটির সদস্যদের উপস্থিতিই প্রমাণ করে সদর উপজেলার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি ভালো। দেশের অন্যান্য উপজেলার অপরাধ চিত্র দেখে সদর উপজেলার আইন শৃংখলা পরিস্থিতির প্রশংসা করে তিনি বলেন, আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অধিকতর ভালো রাখার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রয়াস চালাতে হবে। তিনি বলেন, ভারম্নয়াখালী রোডে ডাকাতি এবং বন বিভাগের গাছ কাটা হচ্ছে। এইসব রোধে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে ভারম্নয়াখালী ইউনিয়নের মাসিক আইন শৃংখলা কমিটির সভা আলোচনা করে জনসচেতনা বৃদ্ধির অনুরোধ জানান। প্রয়োজনে উপজেলা কমিটির সদস্যবৃন্দ উক্ত সভায় উপস্থিত থাকবেন বলে ঘোষনা দেন। তিনি বলেন, লিংক রোডে যানযটের কারণে স্কুল/কলেজে পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রীরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে এবং রোগীদের নিয়ে হাসপাতালে যেতে বাধা গ্রস্থ হচ্ছে। লিংক রোড বাজারটি সরিয়ে অন্যত্র স্থানামত্মর এবং গাড়ীর কাউন্টার সমূহ বন্ধ করে দেয়ার জন্য চুড়ামত্ম সিদ্ধামত্ম গ্রহনের অনুরোধ জানান। কক্সবাজার মডেল থানার উপস্থিত প্রতিনিধিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, চৌফলদন্ডী-খুরম্নশকুল ব্রীজ চালু হওয়াতে অতি অল্প সময়ের মধ্যে এলাকার বিভিন্ন স্থানে যাওয়া যায়। পুলিশদল অধিকতর তৎপর হলে সদর উপজেলায় কোন অপরাধ প্রবণতা কমে যাবে এবং সদর উপজেলা মডেল উপজেলা হিসেবে গণ্য হবে। সবক্ষেত্রে যাতে এগিয়ে থাকা যায় সেই বিষয়টি স্বরণ রেখে কাজ করার অনুরোধ জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।

 

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ সদর বলেন, বিগত কয়েকদিন পুর্বে ১টি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সদর উপজেলায় ছুরির আঘাতে একজন প্রাণ হারায়। এলাকার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে আইন শৃংখলা বাহিনীকে তৎপর হওয়ার অনুরোধ জানান। চলতি মৌসুমে অনুষ্ঠিতব্য বৈশাখী মেলা বা বলি খেলায় যাতে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেই বিষয়ে সজাগ থাকার জন্যও আইন শৃংখলা বাহিনীদের অনুরোধ জানান। বাল্য বিবাহ রোধে ইউপি চেয়ারম্যানদের অনুরোধ জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন।

 

ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ সদর, বিগত ৩১ মার্চ ২০১৪ খ্রিঃ তারিখ অনুষ্ঠিত সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শামিত্মপুর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হওয়ায় নির্বাচন সংশিস্নষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। সদর উপজেলায় বিগত মাসে ০২ জনের প্রাণহানি ঘটে। তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে তিনি বলেন, সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করলে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা সম্ভব হবে এবং ফলশ্রম্নতিতে সদর উপজেলা শ্রেষ্ঠ উপজেলা হিসেবে বিবেচিত হবে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

কক্সবাজার মডেল থানার প্রতিনিধি মে-১৪ মাসের অপরাধ চিত্র উপস্থাপন করে বলেন, বিগত মাসে তুচ্ছ ঘটনাকে নিয়ে সদর উপজেলার ০২ জন খুন হয়। ০২টি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা তদমত্মাধীন আছে। তিনি বলেন, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তারের জন্য আইন শৃংখলা বাহিনী অধিকতর তৎপর। অপরাধ প্রবণতা রোধ সহ ইয়াবা ব্যবসায়ীদের গ্রেপ্তার কাজে সকলের সহযোগিতা কামনা করে বক্তব্য শেষ করেন।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, ৩১ মার্চ ২০১৪ খ্রিঃ তারিখে নব নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অদ্যকার মাসিক আইন শৃংখলা কমিটির সভায় উপস্থিত আছেন। সভাপতি ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ উপস্থিত সকল সদস্যদের ধন্যবাদ জানান। এলাকার আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে বিনানুমতিতে যাতে এলাকায় কোথাও বৈশাখী মেলা কিংবা বলি খেলা অনুষ্ঠিত না হয় সেদিকে সজাগ থাকা এবং অনুষ্ঠিত হওয়ার খবর পাওয়া গেলে সাথে সাথে আইন শৃংখলা বাহিনীকে সংবাদ দেয়ার জন্য ইউপি চেয়ারম্যানদের অনুরোধ জানান। ভারম্নয়াখালী এলাকায় ডাকাতিরোধ কল্পে মাসিক আইন শৃংখলা কমিটির সভায় স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে আলাপ আলোচনার অনুরোধ জানান। চৌফলদন্ডী খালেও যেন ডাকাতি না হয় সেজন্য খালের পাড়ে পুলিশী টহল মোতায়েন রখার জন্য ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সদর মডেল থানাকে অনুরোধ করেন। পোকখালী-চৌফলদন্ডী-ইসলামপুর রোডের পার্শ্বে স্থিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য সহকারী কমিশনার (ভুমি), সদর কক্সবাজারকে অনুরোধ করেন। সভাপতি বলেন, লিংক রোড বাজার অন্যত্র স্থানামত্মর এবং বাস কাউন্টার সমূহ বন্ধ করে দেয়ার জন্য ইতিপুর্বে অনুষ্ঠিত মাসিক আইন শৃংখলা কমিটির সভায় একাধিকবার আলোচনা এবং সিদ্ধামত্ম গৃহীত হয়। তাছাড়া জেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায়ও বাস কাউন্টার সমূহ পুর্বদিকে সরিয়ে নেয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। খুব সহসাই বর্তমান স্থানে বাস কাউন্টার সমূহ বন্ধ করে দিতে হবে। তিনি বলেন, মাদকসহ ইয়াবা ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারের জন্য কক্সবাজার জেলা আইন শৃংখলা বাহিনী অভিযান জোরদার করেছে। এলাকার কোথাও ইয়াবা বিক্রির খবর পাওয়া গেলে সাথে সাথে আইন শৃংখলা বাহিনীকে সংবাদ দেয়ার অনুরোধ জানান।

 

 

 

 

 

 

 

জেলা আইন শৃংখলা কমিটির সিদ্ধামত্ম মোতাবেক লিংক রোড এলাকায় যানজট নিরসনের জন্য বাস কাউন্টার সমূহ বর্তমান স্থান হতে বন্ধ করে পাশে সরিয়ে নেয়ার জন্য অভিযান চালাতে হবে।

 

 

 

কক্সবাজার সদর উপজেলায় ইয়াবা’র বিরম্নদ্ধে অভিযান জোরদার করে ইয়াবামুক্ত করতে হবে।

 

 

 

 

 

 

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভুমি), ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সদর মডেল থানা এবং

সংশিস্নষ্ট সকল।

 

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার,

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, সদর মডেল থানা,

সহকারী পরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর, সকল ইউপি চেয়ারম্যান এবং সংশিস্নষ্ট সকল। 

 

 

 

 

সভায় আর কোন আলোচ্যসূচী না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে এবং আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নতিকল্পে স্ব স্ব ক্ষেত্রে জবাবদিহিমূলক কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানিয়ে সভার কার্যক্রম সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

 

 

 

 ( শহিদুল ইসলাম )

উপজেলা নির্বাহী অফিসার

সভাপতি

উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটি

সদর,কক্সবাজার

ফোন: ০৩৪১-৬৩৭১৫ ফ্যাক্স : ০৩৪১-৬৪৬৪১

E-mail : unocoxsbazar@mopa.gov.bd

 

 স্মারক নং- ০৫.২০.২২০০.২২২৪.০৪.০৪.২০১২-                                                                                                              তারিখঃ ০৭/০৫/ ২০১৪ খ্রিঃ

 

অনুলিপি সদয় অবগতি/ অবগতি ও কার্যার্থে প্রেরণ করা হলোঃ

 

০১।           মাননীয় সংসদ সদস্য, কক্সবাজার-৩।

০২।           জেলা প্রশাসক, কক্সবাজার।

০৩।          পুলিশ সুপার, কক্সবাজার।

০৪।           সিভিল সার্জন, কক্সবাজার।

০৫।           চেয়ারম্যান/ ভাইস চেয়ারম্যান (পুরম্নষ/ মহিলা), উপজেলা পরিষদ, সদর, কক্সবাজার।

০৬।          বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, উত্তর/ দক্ষিণ বনবিভাগ, কক্সবাজার।

০৭।           সহকারী কমিশনার (ভূমি), সদর, কক্সবাজার।

০৮।          সহকারী পরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, কক্সবাজার।

০৯।           উপজেলা ............................................. কর্মকর্তা, সদর, কক্সবাজার।

১০।           পরিদর্শক, বিআরটিএ, কক্সবাজার।

১১।           চেয়ারম্যান, ........................................... ইউপি, সদর, কক্সবাজার।

১২।           অধ্যক্ষ/প্রধান/সুপার ............................................................................., সদর, কক্সবাজার।

১৩।           জনাব ...........................................................................................................।

১৪।           অফিস কপি।                                                                                                                               উপজেলা নির্বাহী অফিসার

সদর, কক্সবাজার।